খেলা ডেস্ক-

সাম্প্রতিক সময়ে তিন নম্বরে ব্যাট হাতে নিজেকে মেলে ধরতে না পারলেও, সাকিব আল হাসানের ফর্ম নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল। 
গত জুলাইয়ে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিলো বাংলাদেশ। শ্রীলংকার বিপক্ষে ঐ সিরিজের তিন ম্যাচে সাকিব মাত্র ১৯ (১৫, ০, ৪) করেছেন। শ্রীলংকা সিরিজের আগে জিম্বাবুয়েতে একই স্থানে ব্যাট করেছিলেন সাকিব, আট উইকেটসহ ১৪৫ রান করেছিলেন তিনি। এতে সিরিজের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছিলেন সাকিব। যার স্বীকৃতি হিসেবে  আইসিসির প্লেয়ার অফ দ্য মান্থ পুরস্কারও অর্জন করেছিলেন সাকিব।
তামিম বলেন, ‘গত ছয় ওয়ানডেতে একজন খেলোয়াড়ই (সাকিব আল হাসান) ৩ নম্বর পজিশনে ব্যাট করেছে। আমি চিন্তিত নই (তিন নম্বরে তার ফর্ম নিয়ে)।’
সাকিব যদিও শেষ সিরিজে একই পজিশনে ক্লিক করতে পারেনি, তবে ইতিহাস এবং তার পরিসংখ্যান তার সাফল্যের পক্ষে কথা বলছে। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে দু’টি সেঞ্চুরি ও পাঁচটি হাফ সেঞ্চুরিতে তিন নম্বরে ব্যাট করে ৮৬ দশমিক ৫৭ গড়ে আট ম্যাচে ৬০৬ রান করে ইতিহাস তৈরি করেছিলেন সাকিব। একটি ম্যাচে পঞ্চাশ রান অতিক্রম করতে পারেননি, তারপরও ঐ ম্যাচে ৪১ রান করেছিলেন তিনি।
তবে পাঁচ নম্বর পজিশন নিয়ে চিন্তিত তামিম। যেখানে টিম ম্যানেজমেন্ট দুই নতুন মুখ ইয়াসির আলি রাব্বি এবং মাহমুদুল হাসান জয়ের মধ্যে একজনকে খেলার কথা ভাবছিলো।
তামিম বলেন, ‘আমি ৫ নম্বর ব্যাটিং পজিশন নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমরা জয় ও ইয়াসিরের মতো খেলোয়াড় নিয়েছি, তাই আমাদের হাতে বিকল্প আছে। আমরা যদি এই পজিশনের জন্য উপযুক্ত একজনকে পাই তবে, এটি আমাদের জন্য ভাল হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘এই পজিশনটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ কারণ এখানে আপনাকে দ্রুত গতিতে রান করতে হবে। তবে আমরা যদি শুরুর দিকে কিছু উইকেট হারিয়ে ফেলি, তাহলে ৫ নম্বরের ব্যাটারকে ইনিংস গড়তে হবে। যারা ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করেছে তাদেরকে আমরা এই জায়গায় সুযোগ দেবো।’
মূলত  ওপেনার হিসেবে অনেক বেশি উপযুক্ত জয়। তবে তামিম জানান, ঘরোয়া ক্রিকেটে জয়কে মিডল অর্ডারে খেলতে দেখেছেন তিনি।
তামিম বলেন, ‘আমি তাকে ঘরোয়া ওয়ানডে ফরম্যাটে মিডল অর্ডারে খেলতে দেখেছি। তিনি ৩, ৪ নম্বর পজিশনে ব্যাট করেছেন। শীর্ষ তিনে ব্যাট করার ক্ষমতাও আছে তার। সে মূলত ভালো স্পিন খেলে এবং এ কারণেই আমরা তাকে দলে রেখেছি। আমি মনে করি, তরুণ হিসেবে স্পিনারদের মধ্যে সেরা খেলোয়াড় সে।’
ইয়াসিরকে নিয়ে তামিম বলেন, ‘ইয়াসিরের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা প্রযোজ্য। যখনই সুযোগ পেয়েছেন, ভালো খেলেছেন। দেখা যাক ৫ নম্বর পজিশনে কে খেলছে। তবে এটা নিশ্চিত যে, তাদের মধ্যে কেউ খেললে সে ৫ নম্বর পজিশনেই খেলবে।’