নিজস্ব প্রতিবেদক,

সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশে বিভাগের বাইরের জেলাগুলো থেকেও দলটির নেতাকর্মীরা যোগ দিচ্ছেন। সমাবেশস্থল আলিয়া মাদরাসা মাঠে নেত্রকোণা থেকে আসা বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকে দেখা গেছে। এসব নেতাকর্মীদের দাবি হচ্ছে, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরকে মুক্তি দিতে হবে।

জানা গেছে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলাসহ একাধিক মামলায় দণ্ডিত হয়ে কারান্তরীণ রয়েছেন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর। প্রায় ১৩ বছর ধরে তিনি কারাগারে আছেন।বাবরের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোণা জেলার মদন উপজেলার বারি ভাদারায়। তিনি নেত্রকোণা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। ফলে নেত্রকোণার বিএনপি নেতাকর্মীরা বাবরের মুক্তির দাবি বিশেষভাবে জানিয়ে আসছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেটের আলিয়া মাদরাসা মাঠে নেত্রকোণা থেকে আসা বিএনপির বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীকে দেখা যায়। তারা প্যান্ডেল দিয়ে ঘেরা একটি স্টলে অবস্থান নিয়েছেন। সেই স্টলের সামনে একটি ব্যানার টানিয়েছেন তারা। যেখানে লিখা রয়েছে, ‘লুৎফুজ্জামান বাবর ভাইয়ের মুক্তি চাই’।

এসব নেতাকর্মীদের হাতে বাবরের মুক্তি চেয়ে তার ছবি সম্বলিত প্লেকার্ডও দেখা গেছে।

সেখানে উপস্থিত থাকা আব্দুর রহমান আজাদ নিজেকে নেত্রোকোণার খালিয়াজুড়ি উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক বলে পরিচয় দেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের মুক্তির দাবি নিয়ে সিলেটে এসেছি। নেত্রকোণা থেকে প্রায় ৩ হাজার নেতাকর্মী সিলেটের সমাবেশে এসেছেন।’

নেত্রকোণা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব জুয়েল বলেন, ‘বাবর ভাইকে মুক্ত করতে এই সরকারের পতন প্রয়োজন। সরকার পতন না হলে তিনি মুক্তি পাবেন না। তাই সরকার পতনের আন্দোলনে সামিল হতে সিলেটে এসেছি।’

প্রসঙ্গত, বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, তত্ত্বাবধায়ক সরকার, সংসদ বিলুপ্ত ও সরকারের পদত্যাগসহ বিভিন্ন দাবিতে বিভিন্ন বিভাগে বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশ করছে। ইতিমধ্যে কয়েকটি বিভাগ ও ফরিদপুর জেলায় গণসমাবেশ করেছে দলটি। তারই ধারাবিকতায় সিলেটেও আগামী শনিবার (১৯ নভেম্বর) গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে দলটি।